সহজিয়া

সহজিয়া একটি বিশেষ ধর্মসম্প্রদায়, যারা সহজপথে সাধনা করে। এক্ষেত্রে ‘সহজ’ শব্দের অর্থ হচ্ছে যা সঙ্গে সঙ্গেই জন্মায়। জীব বা জড়ের বাহ্য রূপের সঙ্গে সঙ্গে তার ভেতরেও একটি শাশ্বত স্বরূপ জন্মলাভ করে। এ স্বরূপই ‘সহজ’ যার উপলব্ধির মধ্য দিয়েই যাবতীয় প্রাণী ও বস্ত্তর উপলব্ধি হয়। আর এই উপলব্ধির প্রণালীই হলো সহজপথ।

‘সহজ’ শব্দের অন্য অর্থ “যা মানুষের স্বভাবের অনুকূল”। এ অর্থে স্বভাবের অনুকূল পথে আত্মোপলব্ধির চেষ্টা করাই সহজিয়ামতের লক্ষ্য। সহজিয়াদের বিশ্বাস, সাধনার যিনি লক্ষ্য তিনি জ্ঞানের মত এবং তাঁর অবস্থান দেহের মধ্যে। সুতরাং দেহকে বাদ দিয়ে তাঁকে পাওয়া যাবে না। তাঁকে জানা যায় কেবল গুরূপদেশ ও সহজ-সাধনায়। তাই সহজ-সাধনায় দেহের গুরুত্ব অনেক। দৈহিক সাধনা বা পরকীয়া প্রেমের মধ্য দিয়েই সাধনায় সিদ্ধি লাভ করা যায় এটাই সহজিয়ামতের মূল কথা। এই মতাদর্শের ওপর ভিত্তি করে সহজিয়া ধর্ম গড়ে উঠেছে। এই ধর্মমত প্রচারের উদ্দেশ্যে যে সাহিত্য রচিত হয়েছে তা সহজিয়া সাহিত্য নামে পরিচিত।

সহজিয়ারা দুই ভাগে বিভক্ত: বৌদ্ধ সহজিয়া ও বৈষ্ণব সহজিয়া। বৌদ্ধ সহজিয়াদের উদ্ভব বজ্রযানী বৌদ্ধদের থেকে। তাদেরই অনুকরণে বৈষ্ণবদের একটি অংশ বৈষ্ণব সহজিয়া নামে পরিচিত হয়।

সূত্র: বাংলাপিডিয়া